Saturday, 2 May 2015

Jyotshna Electrical and electronics এর পক্ষ থেকে ইনভারটার কেনার কিছু টিপস, জেগুলি জানা না থাকলে আপনি নিশ্চিত ভাবে ঠকবেন।

Jyotshna Electrical and electronics এর পক্ষ থেকে ইনভারটার কেনার কিছু টিপস, জেগুলি জানা না থাকলে আপনি নিশ্চিত ভাবে ঠকবেন। গরম কাল তো এসেই গেলো, আবার সেই লোডসেডিং এর দিন সুরু।অনেকেই ভাবছেন ইনভারটার কেনার কথা। তবে কেনার আগে যে কটি জিনিস আপনাকে বুঝতে হবে.
 ১. আপনি ঠিক কি নিতে চান? হোম ইউপিএস না সিম্পল ইনভারটার। হোম ইউপিএস হলে আপনি বুঝতেই পারবেন না কখন লোডসেডিং হয়েছে। এটার সুইচিং স্পিড অত্যন্ত বেসি।আর ইনভারটার আর বেলায় একটু দেরি হবে। মানে আপনার ডাইরেক্ট চলতে থাকা মেসিন গুলো খনিকের জন্য বন্ধ হবে, হোম ইউপিএস এর বেলায় জা হয় না, এবার ঠিক করুন কি  নেবেন। তবে পিসি কে ডাইরেক্ট চালাতে হোম ইউপিএস ব্যবহার করা উচিত।
 ২. এবার ঠিক করুন আপনার লোড কতটা। সেই মতো পাওয়ারের ইনভারটার নিলেই হবে, সামান্য বেশী ওয়াটের নিয়ে রাখা ভালো।
 ৩. VA /WATT এই দুটো রেটিং নিয়ে ক্রেতাদের মধ্যে কনফিউসন হয়। সবসময় ওয়াট রেটিং দেখে কিনবেন। ভিএ রেটিং থিওরিটিক্যাল ভ্যালু মাত্র, বাস্তবে এর থেকে অনেক কম পাওয়ার পাওয়া জায়।
 ৪. নিজের প্রয়োজন মতো Ah মানের ব্যাটারি কিনুন। গাড়ির ব্যাটারি ব্যবহার করবেন না, করলে আশানরুপ ফল পাবেন না।টিউবুলার ব্যাটারি ব্যবহার করা ভালো।মেইন্টেনেন্স ফ্রী ব্যাটারিও ব্যবহার করতে পারেন। 
৫. সবসময় পিওর সাইন ওয়েভ ইনভারটার ই কিনুন, অন্যথায় আপনার বাড়ির বিভিন্ন ইন্ডাক্টিভ লোড(মোটর, পাখা)এর ক্ষতি হবে। হোম থিয়েটার ঠিক ঠাক সাউন্ড দেবে না। এখন বিভিন্ন ডিজিটাল প্রজুক্তি বাজারে এসে গেছে এগুলো অনেক ভালো।
 ৬. বিল্ট ইন আরথ লিকেজ প্রোটেকশন আছে কিনা দেখে নেবেন।
 7. স্টারটিং এর সময় সব লোড একসাথে চালাবেন না, এই সময় সব লোড রেটেড ভ্যালুর বেসি পাওয়ার টানে,জার ফলে ইনভারটার এর উপর চাপ পড়ে। ওয়ারেন্টি গ্যারেন্টির ব্যাপার গুলো ভালো ভাবে বুঝে নিবেন।  আজ এই পর্যন্ত ই থাক , সবাই ভালো থাকবেন।