Sunday, 7 February 2016

ডিজেল ইঞ্জিন গুলো শুধু শধু দাঁড়িয়ে থাকে,তবুও ইঞ্জিন বন্ধ করেনা। ইসস কত তেল অপচয়। আপনর মনেও কি আমার মতো এই প্রশ্ন টা এসেছে কখোনো?


আজকের পোস্ট এর বিষয়বস্তু এটাই।
প্রথমেই বলে নিই ইন্ডিয়ান রেলওয়ে বেশিরভাগ যে সমস্ত ডিজেল লোকো ব্যবহার করে সবই পুরানো প্রযুক্তির। যেমন WDM2/WDM3A/WDM3D/WDG3A ইত্যাদি।
এতে এখন কার আধুনিক ডিজেল ইঞ্জিনের মতো ইলেকট্রনিক ফুয়েল ইঞ্জেকশন সিস্টেম নেই। তাই গাড়ির মতো একে চটপট চালু বা বন্ধ করা যায়না। ইঞ্জিন ক্রুদের পরপর অনেক গুলো স্টেপ পার করতে হয় ইঞ্জিন চালু করার জন্য, সব মিলিয়ে প্রায় পনেরো থেকে কুড়ি মিনিট সময় লাগে।


আবার বারবার চালু বন্ধ করলে ব্যাটারি প্যাকের উপর চাপ পড়ে ফলে, ব্যাটারি তাড়াতাড়ি নষ্ট হয়ে যায়।
বেসি সময় ইঞ্জিন বন্ধ রাখলে তা ঠান্ডা হয়ে যায়, ইঞ্জিন গরম করতে আবার বেশ কিছু পরিমান এনার্জি নষ্ট হয় ফলে ওভার অল এফিসিয়েন্সী কমে যায়।
লোকো দাঁড়িয়ে থাকলেও ইঞ্জিন  আরো কিছু এডিশনাল কাজ করে থাকে, যেমন ব্রেকিং এর জন্য প্রয়োজনীয় নিউমেটিক প্রেসার কম্প্রেসার চালিয়ে জমা করে এয়ার ট্যাঙ্কে। এছাড়াও ব্যাটারি চার্জ করে থাকে।
বিভিন্ন জাংশান স্টেশনে আমরা যে ডিজেল লোকো দাঁড়িয়ে থাকতে দেখি তা মূলত সান্টিং এর জন্য ব্যবহার করা হয়, কয়েক মিনিট ছাড়া ছাড়াই এদের দরকার পড়ে, তাই আর বন্ধ করা হয়না।