Monday, 4 January 2016

: ইন্ডিয়ান রেলওয়ে এক্সাম ২০১৬: (লোকোমোটিভ ব্রেকিং নিয়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য)

এতবড় ট্রেন টাকে থামানো কি আর সহজ কাজ,কত কায়দাই না করতে হয় লোকোপাইলট কে।তবেই না এত স্মুথলি প্রত্যেক স্টেশনে থামতে পারে।
আজকের আলোচনার বিষয় হচ্ছে বিভিন্ন ধরনের ব্রেকিং টেকনিক। এক্সাম হোক বা ইন্টার্ভিউ, সমান গুরুত্বপূর্ণ।
অনেক রকম টেকনিকের মধ্যে আজ বলছি মূল তিনটের কথা।
১। রিওস্ট্যাটিক ব্রেকিং:
যেকোনো গতিশীল বস্তুরই একটা গতি শক্তি থাকে,এটা ভরবেগ বা মোমেন্টাম।এর ফলে বাইরে থেকে কোনো শক্তি না দিলেও নিজের ভরবেগের কারনে এটা গতি বজায় রাখবে।একটা ট্রেনের ভর যেহেতু বিশাল তাই ভরবেগ ও হয় প্রচুর। তাই শুধু সাধারণ ব্রেক দিয়ে একে থামানো মুস্কিল হয়ে পড়ে।
আমরা জানি শক্তির বিনাশ নেই,তাই বুদ্ধিমানের কাজ হল ভরবেগের এই গতি শক্তিকে শুষে নিয়ে অন্য কোনো শক্তিতে রূপান্তরিত করা। রিওস্ট্যাটিক ব্রেকিং এর এটাই মূল কথা।
একটা ইঞ্জিনে মোট ছটা ডিসি সিরিজ মোটর লাগানো থাকে।এটা এমন এক ধরনের মোটর যেটা মোটর হিসাবেও কাজ করতে পারে আবার প্রয়োজনে জেনারেটর হিসাবেও কাজ করতে পারে।
যখন ব্রেকিং এর প্রয়োজন পড়ে তখন মোটরের পাওয়ার সাপ্লাই বন্ধ করে দেওয়া হয়।কিন্তু মোটর চাকার সাথে কানেক্টেড থাকার জন্য তখনো ঘুরতে থাকে,এখন এটা জেনারেটর এর মত কাজ করতে থাকে, এটা তখন চাকার গতিশক্তি কে শুষে নিয়ে বৈদ্যুতিক শক্তিতে রূপান্তরিত করে। এই বিদ্যুৎ শক্তি কে একটা রেজিস্টর এর ভিতর দিয়ে পাঠিয়ে নষ্ট করে দেওয়া হয়।অনেকটা আপনার বাড়ির হিটারের মতো।রেজিস্ট্যান্স গুলো গরম হয়ে যার,এগুলো ঠান্ডা করতে কুলার লাগানো থাকে। এর ফলে চাকার শক্তি কমে আসে ফলে ট্রেন স্লো হয়ে আসে।
:রিজেনারেটিভ ব্রেকিং:
এটির ও মূল নীতি একই,শুধু রেজিস্টর এর ভিতর শক্তি নষ্ট না করে,একটি বিশেষ প্রক্রিয়ায় পুনরায় সাপ্লাই এ পাঠিয়ে দেওয়া হয়।এর ফলে অনেক পাওয়ার সেভিং হয়। এখন বেশিরভাগ ট্রেনে এই টেকনোলোজি ইউজ করা হয়।
:মেকানিক্যাল ব্রেকিং:
স্পীড যখন বেস খানিকটা কমে আসে,রিজেনারেটিভ ব্রেকিং এর প্রভাব অনেকটা কমে আসে, তখন কাজে আসে এয়ার প্রেসার নিউম্যাটিক ব্রেকিং।এটা অনেকটা আপনার সাইকেলের ব্রেকের মতো।শুধু হাত দিয়ে চাপ দেবার কাজটা করে এয়ার প্রেসার।চাপ লাগে প্রায় প্রতি বর্গ সেমিতে সাড়ে তিন কেজি।
ব্রেকিং এর জন্য লোকোপাইলট এর হাতে থাকে দুটো কন্ট্রোল ভালব SA9 and A9।
              পরে আলোচনা হবে এগুলো নিয়ে। আগামি পর্বে থাকছে এমারজেন্সি ব্রেক নিয়ে।পারলে শেয়ার করুন আপনার বন্ধুদের সাথে।
আপনার জন্য: বাড়ির অথবা কারখানার ইলেক্ট্রিক্যাল ও ইলেক্ট্রনিক্স নিয়ে যেকোনো সমস্যার বিনামূল্যে সলিউশন টিপস পেতে যুক্ত থাকুন আমাদের পেজে। আপনার এক্সামের জন্য আগাম শুভকামনা Jyotshna Electricals and Electronics এর তরফ থেকে। নতুন কিছু নিয়ে জানার আগ্রহ থাকলে প্রশ্ন করতে পারেন।